পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ

পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ রচনা ২০২২ । সকল শ্রেনির জন্য

পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ রচনা ২০২২ । সকল শ্রেনির জন্য

পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ টি সকল শ্রেণীর জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদটি আমাদের সবার জানা উচিত। কারণ পদ্মা সেতু শুধু একটি সেতু নয়, এটি বাংলাদেশের একটি সম্পদ, স্বপ্ন ও গৌরব ।

তাই আজকে আমরা পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ টি জানব। পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ টি সকল ক্লাস এবং বোর্ড পরীক্ষার জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাই আপনাদের সুবিধার্থে পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ টি নিচে দেওয়া হলঃ

Padma Bridge Paragraph পড়তে লিঙ্ক এ ক্লিক করুন : The Padma Bridge Paragraph

অনুচ্ছেদঃ পদ্মা সেতু

পদ্মা সেতু বাংলাদেশের পদ্মা নদীর উপর নির্মিত একটি বহুমুখী সড়ক ও রেলপথ। পদ্মা সেতুর প্রকল্পের নাম পদ্মা বহুমুখী সেতু। পদ্মা সেতু হয়ে শরীয়তপুর ও মাদারীপুর মুন্সীগঞ্জে মিশেছে।

দ্বি-স্তর বিশিষ্ট ইস্পাত ও কংক্রিটের ট্রাস পদ্মা সেতুর শীর্ষে একটি চার লেনের রাস্তা এবং নীচে একটি একক রেলপথ রয়েছে। পদ্মা সেতুর কেন্দ্রীয় অবকাঠামো ১৫০ মিটারের ৪২ টি পিলার এবং ৪১ টি স্প্যান নিয়ে গঠিত। পদ্মা সেতুর দৈর্ঘ্য ৬.১৫ কিলোমিটার এবং প্রস্থ ৭২ ফুট। মূল সেতুর মোট ব্যয় ২৮ হাজার ৭৯৩ কোটি ৩৯ লাখ টাকা।

পদ্মা সেতু নির্মাণের জন্য আনুষ্ঠানিক চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় ১৭ জুন, ২০১৪, বাংলাদেশ সরকার এবং চায়না মেজর ব্রিজ কোম্পানির মধ্যে। কোম্পানিটি চায়না রেলওয়ে গ্রুপ লিমিটেডের একটি প্রতিষ্ঠান।

প্রথমে পদ্মা নদীর তলদেশে মাটি খুঁজতে হিমশিম খেতে হয় সেতু নির্মাণ প্রকৌশলী ও বিশেষজ্ঞদের। পদ্মার নিচে সাধারণ মাটি পাওয়া যায়নি। সেতুর পাইলিংয়ের কাজ শুরু হওয়ার পর সমস্যা দেখা দিয়েছে। প্রকৌশলীরা নদীর তলদেশে কৃত্রিম মাটি তৈরি করে স্তম্ভ নির্মাণের চেষ্টা করেন। এভাবে গ্রাউটিং করে পদ্মা সেতু তৈরি করা হয়েছে।

এ প্রক্রিয়ায় ওপর থেকে পিলারের গর্ত দিয়ে নদীর নিচে রাসায়নিক পদার্থ পাঠিয়ে মাটির শক্তি বৃদ্ধি করা হয়। তারপর সেই মাটিতে স্তম্ভগুলো নির্মাণ করা হয়। এই পদ্ধতিতে, ছোট স্টিলের পিলারগুলিকে পাইল দিয়ে ঢালাই করা হয়। এক ধরনের রাসায়নিক পাইপের মাধ্যমে নদীর নিচের মাটিতে পাঠানো হয়। রাসায়নিকের প্রভাবে নিচের মাটি শক্ত হয়ে যায়। এক পর্যায়ে সেই মাটি স্তূপের ভার বহন করতে সক্ষম হয়। তাহলে পিলার বসাতে আর কোনো বাধা নেই।

AECOM পরামর্শদাতারা পদ্মা সেতুর নকশা করেছেন।

প্যানেলটি সেতুর নকশা ও বাস্তবায়নের বিষয়ে প্রকল্প কর্মকর্তা, নকশা পরামর্শদাতা এবং উন্নয়ন সহযোগীদের বিশেষজ্ঞ পরামর্শ প্রদান করে।

৪ জুন থেকে ১০ জুন, ২০২২ পর্যন্ত ধাপে ধাপে সেতুর ৪১৫ টি লাইটের পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। ১৪ জুন, সমস্ত প্রদীপ একবারে জ্বলে উঠল। পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছিল ৭ ডিসেম্বর, ২০১৪ -এ এবং পদ্মা সেতুটি ২৫ জুন, ২০২২তারিখে উদ্বোধন করা হয়েছিল।

বহুদিনের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হওয়া এত সহজও ছিলনা । অনেক কষ্ট আর অপেক্ষার মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতু টি ২৫ জুন ২০২২ উদ্বোধন করেন, আমাদের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী দেশ রত্ন শেখ হাসিনা । পদ্মা সেতু নির্মাণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভুমিকা অতুলনীয় ।

কারন পদ্মা সেতু নির্মাণে আসছিল অনেক বাঁধা এবং নিন্দুকের পিছুটান । কিন্তু দেশ্র রত্ন প্রধানমন্ত্রী সব বাঁধা অ নিন্দুকের সব কিছু পিছে ফেলিয়ে তিনি সপ্নের পদ্মা সেতুকে বাস্তবায়িত করেছেন । সুতরাং পদ্মা সেতু নির্মাণে শেখ হাসিনার ভুমিকা অপরিসীম ।

>>>>পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ টি সবার উপকারে আসবে বলে আশা করছি।

কারণ আমি এখানে পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ সহজ ও সুন্দর করে সাজিয়েছি।

আপনার কাছে যদি পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ ভাল লেগে থাকে, তাহলে পদ্মা সেতু, এবং পদ্মা সেতুর রচনা এবং পদ্মা সেতু সম্পর্কে একাডেমিক আপডেট এবং পদ্মা সেতু সম্পর্কে সাধারণ জ্ঞান পেতে নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট দেখুন। এবং আপনার বন্ধুদের সাথে পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদটি শেয়ার করুন। পদ্মা সেতু অনুচ্ছেদ টি সম্পূর্ণ  পড়ার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ

This Post Has 7 Comments

  1. Mahim khan

    Welcome

  2. Afrin Mondol

    Welcome

  3. Rakib

    onk valoooo hoise tnq you

  4. Mahira

    অসাধারন লিখেছ। bro / sis

Leave a Reply

19 − ten =

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.