ইসলাম
ইসলাম

পুরুষদের বা ছেলেদের জন্য মাহরাম কে কে বা কারা?

আজকের পোস্টে আমরা পুরুষদের বা ছেলেদের জন্য মাহরাম কে কে বা কারা সে বিষয় নিয়ে আলোচনা করব ইনশাআল্লাহ্‌! আল্লাহ আমাদের সকলকে পর্দা মেনে থাকার তাওফিক দিন। 

পুরুষদের জন্যে মাহরাম নারীগণ, যাদেরকে বিয়ে করা পুরুষদের জন্য হারাম

মায়ের মত পাঁচ জন পুরুষদের বা ছেলেদের জন্য মাহরাম

(১) নিজের মা

(২) দুধ মা

(৩) খালা

(৪) ফুফু

(৫) শাশুড়ী

বোনের মত পাঁচ জন মাহরাম পুরুষদের বা ছেলেদের জন্য

(১) আপন বোন

(২) দুধ বোন

(৩) দাদী

(৪) নানী

(৫) নাতনী

মেয়ের মত চার জন মাহরাম পুরুষদের বা ছেলেদের জন্য

(১) নিজের মেয়ে

(২) ভাইয়ের মেয়ে

(৩)বোনের মেয়ে

(৪) পুত্রবধু

” তোমাদের কারো মাথায় যদি লোহার সুঁচ দিয়ে আঘাত করা হয় তবে সেই আঘাত এর যন্ত্রণা তার জন্য উত্তম এমন কোনো মহিলা কে স্পর্শ করা থেকে যাকে স্পর্শ করা তার জন্য জায়েজ নেই। (অর্থাৎ গায়ের মাহরাম মহিলা)।” ( হাদিস টি সহিহ, তাবারানী, ২০ /২১২, সহীহ আল-জামী, ৪৯২১)

এছাড়া বাকিদের সাথে দেখা করা তো দুরের কথা, অযথা কথাবার্তা বলাও কবীরা গুনাহ।

চাই তা সরাসরি হোক বা মোবাইল ফোনে হোক।

” তোমরা যদি আল্লাহকে ভয় করো তবে বাক্যালাপে কোমলতা অবলম্বন করো না যাতে দুষ্ট মনের কোন ব্যাক্তি লালসা করতে পারে; বরং সোজা ও স্পষ্ট বলো।” (৩৩:৩২)

আস্তাগফিরুল্লাহ! আলহামদুলিল্লাহ! ইনশাআল্লাহ! 

নারীর ১৪ জন মাহরাম পুরুষ কারা এক নজরে দেখে নিন-

১. স্বামী (দেখা দেওয়া, সৌন্দর্য প্রদর্শনের প্রেক্ষিতে

মাহরাম)

২. পিতা, দাদা, নানা ও তাদের উর্ধ্বতন পুরুষগণ মাহরাম।

৩. শ্বশুর, আপন দাদা শ্বশুর ও নানা শ্বশুর এবং তাদের উর্ধ্বতন পুরুষগণ মাহরাম।

৪. আপন ছেলে, ছেলের ছেলে, মেয়ের ছেলে ও তাদের ঔরসজাত পুত্র সন্তান এবং আপন মেয়ের স্বামী মাহরাম।

৫. স্বামীর অন্য স্ত্রীর গর্ভজাত পুত্র অর্থাৎ সৎ ছেলে মাহরাম।

৬. আপন ভাই, সৎ ভাই মাহরাম।

৭. ভাতিজা অর্থাৎ, আপন ভাইয়ের ছেলে এবং সৎ ভাইয়ের ছেলে মাহরাম।

৮. ভাগ্নে অর্থাৎ, আপন বোনের ছেলে এবং সৎ বোনের ছেলে মাহরাম।

৯. এমন বালক যার মাঝে মহিলাদের প্রতি কোন আকর্ষণ নেই অর্থাৎ পাগল ও শিশু।

১০. দুধ সম্পর্কীয় পিতা, দাদা, নানা, চাচা, মামা এবং তাদের উর্ধ্বতন পুরুষগণ মাহরাম।

১১. দুধ ভাই, দুধ ভাইয়ের ছেলে, দুধ বোনের ছেলে এবং তাদের ঔরসজাত যে কোন পুত্র সন্তান মাহরাম।

১২. দুধ সম্পর্কীয় ছেলে, তার ছেলে, দুধ সম্পর্কীয় মেয়ের ছেলে এবং তাদের ঔরসজাত যে কোন পুত্র সন্তান। এবং দুধ সম্পর্কীয় মেয়ের স্বামী মাহরাম।

(বুখারী শরীফ হাদীস নং ৫০৯৯, মুসলিম শরীফ হাদীস নং ১১৪৪)

১৩. আপন চাচা, সৎ চাচা।

১৪. আপন মামা, সৎ মামা।

উপরোক্ত পুরুষ যাদের সাথে দেখা দিতে পারবে তারা ছাড়া অন্য সমস্ত পুরুষকে দেখা দেওয়া সম্পূর্ণ নাজায়েয এবং সৌন্দর্য প্রদর্শন হারাম।

প্রশ্নঃ মাহরাম কি ? বা গায়ের মারহাম কারা?

মাহরাম কি? 

যে সকল পুরুষের সামনে নারীর দেখা দেওয়া,কথা বলা জায়েজ এবং যাদের সাথে বিবাহ বন্ধন সম্পূর্ণ হারাম তাদের কে শরীয়তের পরিভাষায় মাহরাম বলে|

মাহরাম কারা?

সূরা আন নূরের ৩১ নং আয়াতে আল্লাহ তায়ালা নারীর মাহরাম নির্ধারিত করে দিয়েছেন|

এক নজরে মাহরাম পুরুষ

১. স্বামী

(দেখা দেওয়া,সৌন্দর্য প্রদর্শনেরপ্রেক্ষিতে মাহরাম)

২. পিতা, দাদা, নানা ও তাদের উর্ধ্বতন পুরুষগণ।

৩. শ্বশুর, আপন দাদা ও নানা শ্বশুর এবং তাদের উর্ধ্বতন পুরুষগণ।

৪. আপন ছেলে, ছেলের ছেলে,মেয়ের ছেলে ও তাদের ঔরসজাত পুত্র সন্তান এবং আপন মেয়ের

স্বামী।

৫. স্বামীর অন্য স্ত্রীর গর্ভজাত পুত্র।

৬. আপন ভাই,সৎ ভাই

৭. ভাতিজা অর্থাৎ, আপন ভাইয়ের ছেলে এবং সৎ ভাইয়ের ছেলে।

৮. ভাগ্নে অর্থাৎ, আপন বোনের

ছেলে এবং সৎ বোনের ছেলে।

৯. এমন বালক যার মাঝে মহিলাদের প্রতি

কোন আকর্ষণ নেই।

(সূরা নূর-৩১)।

১০. দুধ সম্পর্কীয় পিতা, দাদা, নানা, চাচা, মামা এবং তাদের উর্ধ্বতন পুরুষগণ।

১১. দুধ ভাই, দুধ ভাইয়ের ছেলে, দুধ বোনের ছেলে এবং তাদের ঔরসজাত যে কোন পুত্র সন্তান।

১২. দুধ সম্পর্কীয় ছেলে, তার ছেলে, দুধ সম্পর্কীয় মেয়ের ছেলে এবং তাদের ঔরসজাত যে

কোন পুত্র সন্তান। এবং দুধ সম্পর্কীয় মেয়ের স্বামী। (বুখারী শরীফ হাদীস নং ৫০৯৯,

মুসলিম শরীফ হাদীস নং ১১৪৪)।

১৩. আপন চাচা, সৎ চাচা।

১৪. আপন মামা,সৎ মামা।

(সূরা নিসা-২৩)।

উপরোক্ত পুরুষ যাদের সাথে দেখা করতে বা দেখা দিতে পারবে তারা ছাড়া অন্য সমস্ত পুরুষকে দেখা দেওয়া সম্পূর্ণ নাজায়েয এবং হারাম।

আরো পড়ুন,

রমজান মাসের ফজিলত ও গুরুত্ব

রমজান মাসের দোয়া এবং আমল সমূহ

রমজানের মাসআলা সমূহ

রমজানের পূর্ব প্রস্তুতি যেভাবে নেবেন

রমজানের সময় সূচি 2022

ইফতারের দোয়া এবং নিয়ত

রোজার নিয়ত

Leave a Reply

9 + eight =

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.